কমিশনার এর ইন্ধনে কুষ্টিয়া চৌড়হাসে বিক্রিত পজিশন জোরপূর্বক দখল, ক্রেতাকে হুমকি প্রয়োগের অভিযোগ

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩ নভেম্বর, ২০২০
  • ২৯ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার চৌড়হাস এলাকায় চৌড়হাস বাজারের উত্তর পার্শ্বের ও কুষ্টিয়া ঝিনাইদহ রোডের পূর্ব পার্শ্বে অবস্থিত শাহিন ম্যানশনের ৬ তলা বিশিষ্ট মার্কেটের নিচতলার ( ৫ পাচ) টি পজিশন কুষ্টিয়ার হরিনারায়নপুরের বেড় বাড়াদি এলাকার মৃতঃ কামাল উদ্দিন বিশ্বাসের ছেলে শাহিনুর রহমান এর নিকট হতে পজিশন প্রতি নগদ তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা দিয়ে চৌড়হাস এলাকার ১.সুমাইয়া ইয়াসমিন, ২. রেবেকা সুলতানা ৩.মনোয়ার হোসেন, ৪.মোছাঃ তাসফিয়া ও ৫,মোছাঃ রহিমা খাতুন নামে পাচ ব্যাক্তি পজিশন ক্রয় করে।

 

 

 

সেই পজিশন এর চুক্তিপত্র ও করে দেন পজিশন মালিক মোঃ শাহিনুর রহমান শাহিন। বর্তমানে বিক্রেতা শাহিনুর রহমান বিক্রিত পজিশন ফেরত নিতে বিভিন্ন ভাবে নিজে এবং তার পোষা সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ঐ সব ক্রেতাদের উপর ভয়ভীতি ও চাপ প্রয়োগ করে আসছে, এবং এই পজিশন ফেরত না দিলে হত্যার হুমকিও দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ করে পজিশন ক্রেতারা।

 

 

এলাকায় এ নিয়ে অনেক বার বসাবাসি হলেও সেই পজিশনের মালিক শাহিনুর রহমান শাহিন অদৃশ্য ক্ষমতার বলে পজিশন বুঝিয়ে দেয়নি ক্রেতাগণের কাছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় দোকান আকারে পজিশন রাখার কথা থাকলেও শাহীনুর রহমান শাহীন দোকানের পজিশন না রেখে একত্রিত ভাবে শো—রুম এর জায়গা বানিয়ে রেখেছে। এমতাবস্থায় ঐ এলাকার ১৯ নং ওয়ার্ডের পৌর কমিশনার রেজাউল ইসলাম বাবুর কাছে ক্রেতাগন বিচার দিলে কমিশনার উল্টো ক্রেতাগণদের সাথে বাজে ভাষায় গালমন্দ করে ও বাবু কমিশনার শাহিনের পক্ষ নিয়ে পজিশন ফেরত নিতে চাপ প্রয়োগ করে আসছে বলে অভিযোগ করেন পজিশন ক্রেতারা।

 

 

পরবর্তীতে পজিশন ক্রেতাগন কুষ্টিয়া সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে পজিশন ফিরে পেতে মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলা দায়েরকারী, রেবেকা সুলতানা মামলা নং দেং—২২৮, মনোয়ার হোসেন মামলা নং দেং—২২৯, সুমাইয়া ইয়াসমিন মামলা নং দেং—২৩০, মামলা চলাকালীন সময়ে শাহিন ও শাহিনের সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ভয় ভিতি দেখিয়ে মামলা তুলে নিয়ে লিখিত ভাবে পজিশন ফেরত নিতে ভয়ভীতি ও চাপ প্রয়োগ করে আসছে। উক্ত পজিশন শাহিন এর বরাবর ফেরত না দিলে পজিশন ক্রেতাদের হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে বলে জানা যায়,

 

এ ব্যাপারে মালিক শাহিনের সাথে কথা হলে তিনি জানান আমি তাদের পজিশন দিতে পারবো না পরে যা হয় হবে। পজিশন মালিকেরা দাবি করেন দুই বছর আগে ক্রয়কৃত পজিশন আমরা ফেরত চাই এবং ব্যাবসা পরিচালনা করতে চাই,সেই সাথে ভুক্তভোগী পজিশন মালিকেরা দ্রুত পজিশন ফিরে পেতে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার মহোদয় এর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ ও বিনীত অনুরোধ করেছেন,

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....
x