মূলধারার চলচ্চিত্রই তারকা তৈরি করে

বিনোদন প্রতিবেদক:
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ২৩৬ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
ন ডরাই ও কাঠবিড়ালী ছবি

ন ডরাই ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর নায়িকা সুনেরাহ বিনতে কামাল বলেছিলেন, তিনি ভালো ছবি এবং ভালো চরিত্র পেলে চলচ্চিত্রে অভিনয় অব্যাহত রাখবেন। পরে তার নাম দেখা গেল নতুন একটি ছবিতে। সেটাও নির্মাণ করছেন মিডিয়া সংশ্লিষ্ট একজন পরিচালক। কাঠবিড়ালী ছবির নায়িকা অর্চিতা স্পর্শিয়া দেশীয় দর্শক নিয়ে ভাবিত নন। তিনি সরাসরিই বলেন, আন্তর্জাতিক অঙ্গনের দর্শক তাকে চেনে, তাতেই তিনি খুশি। তারও বিচরণ মিডিয়া সংশ্লিষ্ট নির্মাতাদের নিয়েই।

এ শ্রেণীতে আরও অনেক নামই যুক্ত করা যাবে, যারা মিডিয়া সংশ্লিষ্ট নির্মাতাদের ছবিতে কাজ করে জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা হতে চান। কিন্তু সেটা কি সম্ভব? একজন পরিচালক বলেন, খ্যাতিমান তারকাদের কাতারে আসতে হলে মূলধারার চলচ্চিত্রেই অভিনয় করতে হবে। ন ডরাই বা কাঠবিড়ালী শ্রেণীর ছবিতে কাজ করে মূলধারার নায়িকা হওয়া যায় না। মূলধারার ছবিতে কাজ করা শ্রমসাধ্য। এ শ্রেণীর ছবিতে কাজ করতে হলে যে ধরনের যোগাযোগ, সাধনা এবং যোগ্যতার প্রয়োজন হয়, তা সকলের থাকে না। সকলে সেটা পারেও না। টিভি থেকে এসে যারা চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে খ্যাতিমান হতে চান, তাদের ইচ্ছাশক্তি মিডিয়া জগতের সেই চেনা গণ্ডীতেই ঘুরপাক খেতে থাকে। গ্রামের একটি ঘরে বসে থেকে কখনো ঢাকা শহর বা অচেনা স্থানের সঙ্গে পরিচিত হওয়া যায় না। যে কোনো মেয়েকেই বিয়ের পর অচেনা শশুড় বাড়িতে গিয়ে নিজেকে মানিয়ে নিতে হয়। এটা হলো সামাজিক বাস্তবতা।

অন্যদিক থেকে এসে চলচ্চিত্র পরিবারের একজন হয়ে ওঠার বিষয়টাও অনেকটা তাই। একজনকে তারকা খ্যাতি পেতে হলে মূলধারার ছবিতেই কাজ করতে হবে। স্মিতা পাতিল ‘আলবার্ট পিন্টু কা গোস্যা কেও আতা হ্যায়’ ছবিতে যেমন কাজ করেছেন, তেমনি তিনি অমিতাভের সঙ্গে নিমক হালাল ছবিতেও কাজ করেছেন এবং আজ যেরাপট আয়েতো গানের সঙ্গে বৃষ্টিস্নাত হয়েছেন। শাবানা আজমীর ক্ষেত্রেও একই কথা। তিনি ম্যায় আজাদ হু ছবিতে যেমন অভিনয় করেছেন তেমনি পরবারিস ছবিতে পকেটমারের চরিত্রেও অভিনয় করেছেন। তারা ভিন্নধারার ছবিতে যেমন কাজ করেছেন তেমনি কাজ করেছেন মূলধারার বাণিজ্যিক ছবিতে।

একজন অভিনেত্রীর সব ধরনের ছবি ও চরিত্রে অভিনয় সক্ষতা থাকতে হয়। আর তারকা হতে পারেন তার সঙ্গে জনপ্রিয়তা যুক্ত হলে। সুতরাং গল্প ও চরিত্র পছন্দ হলে করব, না হয় করব না-অজুহাত নিয়ে হাত গুটিয়ে বসে থাকলে আর যাই হোক তারকা হওয়া যাবে না।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....
x