দৌলতপুরে সড়ক সংস্কারে অনিয়মের তদন্তকালে ঠিকাদারের ক্যাডার বাহিনীর হামলা! এলাকায় উত্তজেনা

খন্দকার জালাল উদ্দীন,Email:uddinjalal030@gmail.com
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১২ জুলাই, ২০২০
  • ৭৬ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

দৌলতপুর প্রতিনিধি:কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার মথুরাপুর জিসি থেকে জুনিয়াদহ জিসির ১৭৬২ মিটার পাকা সড়ক সংস্কারে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগে গত ২০ই জুন বভিন্নি জাতীয় ও স্থানীয় পত্র-পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হয়। সে সময় রাস্তাটি প্রচন্ড বৃষ্টিতে কাঁদা ও পানির মধ্যে তড়ি ঘড়ি করে নিম্নমানের ইট ও বিটুমিন দিয়ে কাজ শেষ করতে থাকলে এলাকাবাসী বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকে। এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়ে ১৩ জনের নাম উল্লেখসহ আরো অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামী করে ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবীর মিথ্যা মামলা করে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান টিটু এন্টারপ্রাইজের কর্নধার মোঃ ফিরোজ আহম্মদে।

জানাযায়, উপজলোর মথুরাপুর জিসি থেকে জুনিয়াদহ জিসির ১৭৬২ মিটার পাকা সড়ক মেরামত ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে শুরু হয়। সংস্কারের কাজটি পান টিটু এন্টার প্রাইজ নামক চুয়াডাঙ্গার এক ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। উক্ত সড়ক সংস্কারের ব্যায় ধরা হয় ৬৯,২৭,২৭৬ টাকা। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ২৯/১২/২০১৯ ইং তারিখে কাজ শুরু করে, শেষকরার কথাছিল গত ১২/০৩/২০২০ তারিখ। কিন্তু সেই সময় পার হলেও কাজ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানটি। পরবর্তীতে নাসির নামে এক ঠিকাদারের কাছে কাজ বিক্রি করে দেন প্রতিষ্ঠানটি। কিছুদিন পরে কাজ শুরু হলেও অভিযোগ উঠে অনিয়মের।

এরই মধ্যে বৃষ্টিতে কাঁদা ও পানির মধ্যে তড়ি ঘড়ি করে নিম্নমানের ইট ও বিটুমিন দিয়ে কাজ শেষ করা হয়। যার ফলে হাত দিলেই সড়কের কারপেটিং উঠে আসে হাতের সাথে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ দৃশ্য ছড়িয়ে পড়ে। সড়কের অবস্থা দেখে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয় এবং রাস্তা ভালোভাবে সংস্কারের জন্য বিক্ষোভ প্রদর্শন করে তারা। সে সময় এলাকাবাসীর ক্ষোভ ও সড়কের অবস্থা দেখতে গিয়ে তোপের মুখেও পড়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

পরে বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন প্রিন্ট মিডিয়া ও অনলাইনে ছড়িয়ে পড়লে সড়ক সংস্কারের কাজ বন্ধ করে দেয় স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশলী বিভাগ।

রবিবার ১২ই জুলাই ২০২০ তারিখে এলাবাসীর অভিযোগে, সড়ক সংস্কারে অনিয়ম হওয়ার বিষয়টি তদন্ত করতে এসে তদন্ত কাজে বাঁধার স্বীকার হয়েছে তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বিপুল বনিক (এল.জি.ই.ডি সদর দপ্তর)। তদন্ত চলাকালীন সময় তিনি বলেন, এই রাস্তাটির অনিয়মের অভিযোগে আমি তদন্তে এসেছি। রাস্তাটি ঠিকভাবে হয়েছে কিনা সেটা আমরা দেখছি। দেখার পর যদি রাস্তাটির সংস্কারে কোন অনিয়ম হয়। তাহলে তদন্ত করে যাতে করে সঠিক বিচার হয় সেই ব্যবস্থা সদর দপ্তর করবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

এ সময় এলাকাবাসীর পক্ষে অভিযোগকারী মোতাসিম বিল্লাকে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ক্যাডারবাহিনী ও কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিরা শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করেছে বলে জানান তিনি। এ দৃশ্য অনেকে মোবাইলে ধারল করে। তিনি আরো জানান, আমি এলাকাবাসীর পক্ষে রাস্তাটির সংস্কার কাজে অনিয়ম হয়েছে বলে অভিযোগ করে ছিলাম, সে কারনে তদন্ত কার্যক্রম দেখতে গিয়েছিলাম। কিন্তু পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দৌলতপুর উপজলোর ঠিকাদার সাদিকুজ্জামান সুমন সহ তার ২০/২৫ জন ক্যাডার বাহিনীকে দিয়ে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান টিটু এন্টারপ্রাইজ এর পক্ষ নিয়ে আমাকে মারপিট ও শারিরীক ভাবে লাঞ্চিত করেছে।
এ ব্যাপারে সাদিকুজ্জামান খান সুমনের কাছে জানতে চাওয়ার জন্য একাধিকবার ফোন করলেও তিনি ফোন রিসিট করেননি। এ বিষয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে, যে কোন সময় ঘটে যেতে পারে মর্মান্তিক সংর্ঘষ্য।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....
x