প্রেমিক যখন ঘাতক: কুষ্টিয়ায় সেভেনআপে বিষ মিশিয়ে প্রেমিকাকে খাওয়ালেন প্রেমিক শাকিল

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৮ আগস্ট, ২০২০
  • ১৭০ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
৭ম শ্রেণির ছাত্রী ডালিয়া খাতুন

কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের শুখপুকুরিয়া গ্রামের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ডালিয়া খাতুন (১৩)কে তার প্রেমিক শাকিল রাতে ফোন করে ডেকে নিয়ে গিয়ে সেভেন-আপের বোতলে করে (সেভেন আপ পান করিয়ে দেয়। শুক্রবার (৭ আগস্ট) দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যায় ওই স্কুল ছা্ত্রী।

জানা যায়, হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেনির শিক্ষার্থী ডালিয়া (১৩)। তিনি কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের শুখপুকুরিয়া গ্রামের ডালিম হোসেনের মেয়ে ডালিয়া খাতুন।

ঘাতক প্রেমিক শাকিল কুষ্টিয়া ইবি থানার পাটিকাবাড়ি ইউনিয়নের খেজুরতলা (ওয়াপদা) গ্রামের রবিউলের ছেলে। শাকিলের খালাতো দুলাভাই শুখ পুকুরিয়া গ্রামের আদম আলীর ছেলে মাহফুজ হোসেন ডালিয়ার সঙ্গে প্রেম করিয়ে দেয়। পুর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিশোধ হিসেবে শাকিল তার প্রেমিকাডালিয়াকে ডেকেনিয়ে সেভেন আপ বলে বিষ পান করিয়ে দেয়।

এদিকে নিহতের পরিবার জানা যায়, ঈদের পরের দিন রবিবারে ঘাতক প্রেমিক শাকিল তার খালাত দুলাভাই মাহফুজের বাড়িতে আসে। এরপর নিহত ডালিয়ার মোবাইলে ফোন দিয়ে রাত আনুমানিক ১০টার দিকে ক্যানালের পাড়ে ডেকে নিয়ে যায়। তারপর ওই রাতে শাকিল কৌশলে সেভেন আপের বোতলে বিষ মিশিয়ে সেভেন আপ বলে ডালিয়াকে পান করায়। এসময় ডালিয়া ওই পানি পান করার কিছক্ষন পরে চিৎকার করতে থাকে, তার আত্নচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে নিশ্চিত হয় ঘাতক শাকিল তাকে বিষ পান করিয়েছে।

স্থানীয়রা ডালিয়াকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। তার অবস্থার অবনতি হলে গত ৬ আগস্ট কুষ্টিয়া হাসপাতাল থেকে ডালিয়াকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড করে।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার (৭ আগস্ট) দুপুর ১২তার দিকে ডালিয়া মৃত্যুবরণ করে। এ ঘটনায় ডালিয়া বড় চাচা হামিদুল ইসলাম বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মিরপুর থানায় ৬ আগস্ট একটি হত্যার প্রচেষ্টার মামলা দায়ের করে। মামলায় শাকিলকে প্রধান ও খালাত দুলাভাই মাহফুজ হোসেনসহ মোট ৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে।

এ ব্যাপারে মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালামের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, গতকাল এই ঘটনায় হত্যা প্রচেষ্টার একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। বাদী হয়েছেন হামিদুল ইসলাম। এই স্কুল ছাত্রী নিহতের ঘটনায় ৩০২ ধারা সংযুক্ত করা হবে। আসামী গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এলাকাবাসী ঘাতক শাকিল ও মাহফুজের উপর ফুসে উঠেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....
x