প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকদের কল্যাণে যা করেছেন অতীতে তা কেউ করেনি: মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১০ আগস্ট, ২০২০
  • ৬৫ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়া জেইউকের আয়োজনে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে করোনাকালীন পরিস্থিতিতে সাংবাদিকদের প্রধানমন্ত্রীর আার্থিক সহায়তার চেক প্রদান

সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়া জেইউকের আয়োজনে সোমবার কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে করোনাকালীন পরিস্থিতিতে সাংবাদিকদের প্রধানমন্ত্রীর আার্থিক সহায়তার চেক প্রদান অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশাহ এমপি, ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ এমপি, পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার), জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোল্লা জালাল, মহাসচিব শাবান মাহমুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী। সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন।

 

 

সভা সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়া-জেইউকের সভাপতি রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব। বক্তব্য রাখেন, সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সাধারণ সম্পাদক জামিল হাসান খান খোকন, যুগ্ম সম্পাদক মিলন উল্লাহ, কুষ্টিয়া প্রেস ক্লাব কেপিসির সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক সাবিনা ইয়াসমিন শ্যামলী, বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাহী সদস্য আফরোজা আক্তার ডিউ, মাহমুদ হাসান, কেপিসির সহ সভাপতি মীর আল আরেফিন বাবু, দপ্তর সম্পাদক নাহিদ হাসান তিতাস।

 

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকদের কল্যানে যা করেছেন অতীতের কোন সরকার তা করেনি। সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট গঠনের মাধ্যমে অসচ্ছল, আহত সাংবাদিক ও প্রয়াত, নিহত সাংবাদিক পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সাংবাদিক সমাজের পেশাগত উন্নয়নের পাশাপাশি জীবনমান উন্নয়নে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। তিনি আরও বলেন, সাংবাদিক ইউনিয়নে তারাই আসবেন ষারা মনে প্রানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করতে কেউ আসবেন না।

 

 

 

সভাপতি মোল্লা জালাল বলেন, সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী না হলে তাদের জায়গা ইউনিয়নে হবে না। আমি যা বলেছি সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়া সেই কথা রেখেছে। প্রেসক্লাব মোড়ে মোড়ে করা যায় কিন্তু ইউনিয়ন করা যায়না। সরকারের একমাত্র বার্গেনিং এসেন্সি ইউনিয়ন। গভঃ রেজিস্টার্ড সংগঠন।

 

 

 

মহাসচিব শাবান মাহমুদ বলেন, সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়াতে এখন অনেকেই অাসতে চাচ্ছেন। এ থেকে প্রমাণ হয় বিপ্লব-খোকনের নেতৃত্ব কুষ্টিয়ায় ইউনিয়ন অনেক শক্তিশালী। প্রগতিশীলদের জন্য দরজা খোলা। তবে যারা মনে প্রানে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বিশ্বাস করেন না, তারা সুবিধা নিতে আসবেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....
x