দৌলতপুরে মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ ॥ বড় মাছকে পোনা বলে চালিয়ে লক্ষাধিক টাকা আত্বসাত

Khandaker Jalal Uddin. Email: uddinjalal030@gmail.com
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩৯ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

 

দৌলতপুর প্রতিনিধিঃ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ, বড় মাছকে পোনা বলে চালিয়ে লক্ষাধিক টাকা আত্বসাতের চেষ্টা।
মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মৎস্য পক্ষ উপলক্ষে জলাশয় ও পুকুরের জন্য দেয়া হয়েছে বড় মাছ। ফলে, পোনা ক্রয়ের বরাদ্ধ নয়-ছয় হয়েছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, মৎস্য পক্ষ উপলক্ষে উপজেলার ১০টি জলাশয় ও চারটি পুকুরের জন্য ৭৩০ কেজি মাছের পোনা অবমুক্তকরণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সে লক্ষ্যে উপজেলার উপকারভোগী পুকুর মালিক জলাশয়ের জেলেদের কাছে সোমবার বেলা ১১টার দিকে এসব মাছ বিতরণ করা হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, পোনার বদলে বিতরণ করা হয় ৩০০ থেকে ৭০০ গ্রাম ওজনের মাছ- যা বাজারে ১০০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি দরে পাওয়া গেলেও ৭৩০ কেজি মাছের সরকারি মূল্য ২৭৫ টাকা কেজি হিসাবে প্রায় ২ লক্ষ টাকা দেখানো হয়েছে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, মৎস্য কর্মকর্তা অনিয়ম ও দূর্নীতির মাধ্যমে নামমাত্র মূল্যে বড় মাছ কিনে বরাদ্দকৃত অর্থের সিংহভাগ অর্থ পকোটস্থ করেছেন এবং অনিয়ম ও দূর্নীতির আশ্রয় নিয়ে দায়সারা ভাবে দিবসটি পালন করেছেন।

এ ব্যাপরে ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা খন্দকার শহিদুর রহমান জানান, কোটেশনের মাধ্যমে পোনামাছ ক্রয় করা হয়েছে।

পোনার বদলে বড় মাছ কেনা হলো কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা খন্দকার শহিদুর রহমান কোন সদোত্তর দিতে পরেনি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....
x